আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স রিভিউ

  • April 15, 2022
  • bongopediaofficial
  • 1 min read

আইফোনের কথা শুনলে মানুষ একটু বেশি উৎসাহ দেখায়। গত কয়েক বছরে আমাদের দেশে আইফোন ব্যবহারকারী সংখ্যা অনেক অনেক বেড়ে গেছে। এখন মধ্যবিত্ত অনেক মানুষের কাছেই আইফোন রয়েছে আর ধনীদের কাছে তো আছেই। তাই এখন আইফোন ব্যবহার করা কোন বড় বিষয় বলা যায় না।

এটি একটি সাধারণ বিষয়। তো বন্ধুরা আজকের আর্টিকেল সম্পর্কে আপনারা অনেকেই বুঝে গেছেন। আর যারা বুঝেননি তাদের জন্য বলছি আজকের আর্টিকেলটা মূলত আইফোন ইউজারদের জন্য। তাদের জন্য এই আর্টিকেলে একটা ভালো খবর আছে সাথে আরেকটা মজাদর খবরও আছে। তো চলেন শুরু করি।

আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স রিভিউ
আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স রিভিউ

আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স রিভিউ

আমরা একটি আসল আইফোন ১৩ প্রো  ম্যাক্স কিনলাম। সেটা সম্পর্কে আজকে বলব। তো প্রথমে আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স একটি কালো রঙের বক্সে রাখা থাকে। এটি সব ফোনই হয়। কিন্তু তারা আগের বক্সটিই দিয়েছে খালি বক্সের সামনে আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্সের ছবিটা লাগিয়ে দিয়েছে। তারা চাইলে একটা নতুন ধরনের বক্স বানাতে পারত।

তো আমরা আনবক্সিং শুরু করি। বক্সটি একটি ট্যাপের সাহায্যে লাগিয়ে রাখে। ট্যাপ খোলার পর ওই ফোনটি পাওয়া যায়। এই ফোনের পাশাপাশি এর পেছনে লুকিয়ে রাখা হয়েছে একটি চার্জিং ক্যাবল আর একটা চার্জার। এটিতে রয়েছে ইউএসবি পোর্ট সি। তো আমার কাছে এই ফোনের রং তেমন ভালো লাগেনি। আসলে আপনাদের কেমন লাগবে জানি না। দুটি কালারের ফোন এসেছে।

একটি হচ্ছে কিছু সবুজ আরেকটা হচ্ছে কিছুটা বেগুনি। আবার আইফোন ১৩ লাল রঙেরও এসেছে যা দেখতে অনেক সুন্দর লাগে। রঙের দিক দিয়ে আইফোন ১৩-ই বেশি সুন্দর লেগেছে অন্যান্যগুলা থেকে।তো অ্যাপল কোম্পানি ২০২১ সালের ১৮ মার্চ চারটি আইফোন লঞ্চ করেছে। একটি হচ্ছে আইফোন ১৩ আরেকটি হচ্ছে আইফোন ১৩ প্রো এবং আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স আবার আরেকটি হচ্ছে আইফোন ১৩ মিনি। আইফোন ১৩ এর কালার হচ্ছে সবুজ রঙের।

কিন্তু আইফোন ১৩ প্রো আর আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স হচ্ছে এলপাইট সবুজ রঙের মানে একটু লাইটিং সবুজ রঙের। আইফোন ১৩ মিনি একেবারে সবুজ। এর কালার দেখতে আমার ভালো লাগেনি বাকিগুলোর তুলনায়। বিশ্বের বাজারে এটা ১৮ মার্চ থেকেই চলে এসেছে। কিন্তু বাংলাদেশে আসতে এক সপ্তাহ লাগছে। তাই আমিও এক সপ্তাহ পরেই এর রিভিউ দিয়ে এসেছি। এই আইফোন ১৩ এ তারা নতুন সবুজ কালারে এনেছে। এছাড়া আরও কয়েকটি কালারেও এনেছে তারা। এরপর এর প্রটেকশন স্ক্রীন খুললেই দেখতে পারছি আমাদের আইফোন ১৩।

আপনি যদি এই ফোনটিকে আইফোন ১২ এর সাথে তুলনা করেন তাহলে কিছুটা কিছুটা পরিবর্তন করেছে ডিজাইনের দিক দিয়েও আবার ভিতরেও। এর পাশে আছে স্ক্রিন অন অফ করার বাটন সাথে আছে সাউন্ড বাড়ানো কমানোর বাটন। এই ফোনটি ধরলে অনেকটা স্মুথ মানে পিচ্ছিল জাতীয় লাগে।

উপরের দিকে একটা লেআউট আছে। বাম দিকে আছে অ্যাপলের দরকারি অপশন মিউট সুইচ। সাথে আছে সাউন্ড বাড়ানো কমানোর বাটন। তারপরে নিচে রয়েছে একটা সিমের অপশন যেখানে আপনি একটি নেনো সিম ব্যবহার করতে পারবেন। এখানে সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আপনি এই সিম ট্রেতে মানে ফোনে দুটি ইলেকট্রনিক সিম কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন। আর এই সুবিধার কারণে এই ফোনটি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে। এর সাথে আপনি পাচ্ছেন এই ফোন মাইক্রোফোন গ্রিল, স্পিকার গ্রিল এবং অ্যাপলের লাইটিং পোর্ট যেখানে আপনি আপনার চার্জিং ক্যাবল দিয়ে চার্জ করবেন।

আমরা যে আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স কিনেছি সেখানে পিছে আলাদা করে ফোনের নিরাপত্তার জন্য গ্লাস থাকে না কিন্তু আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স ফোনের নিরাপত্তার জন্য আপনাকে ব্যাক সাইডে গ্লাস প্রটেকশন দেয়া আছে। এই জন্য প্রো ম্যাক্স দেখতে অনেক সুন্দর লাগে। ব্যাক সাইডে তো সাথে আছেই একটি সিলভারের অ্যাপলের লোগো এবং বাম পাশে উপরে আছে ব্র্যান্ড নিউ ডুয়াল ক্যামেরা।

মজার কথা হচ্ছে এটা যে এখানে যেই সাদা রঙের ক্যামেরা আছে সেটা এসেছে এবার সেন্সর শিফট স্থিতিশীলতার সাথে। এখানে যে দুটি ক্যামেরা আছে দুটিই বারো মেগা পিক্সেলের। এর ফলে আপনি যখন কোনো ছবি বা ভিডিও তৈরি করবেন তখন এর ক্যামেরা আপনাকে ভালো ফিডব্যাক এবং পারফরম্যান্স দিবে।

তারপর নিচে লেখা আছে প্রোডাক্টের নাম।এখানে আপনি সামনের দিকে দেখতে পাবেন ৬.১ ইঞ্চির স্ক্রীন। আর এই স্ক্রীনের ডিসপ্লে হচ্ছে HDR এটা আপনারা সবাই জানেন। এর ফলে আপনি এই ফোন থেকে আরো ভালো পারফরম্যান্স পাবেন। আবার আপনি এখানে মানে ফোনের ভিতর যে নর্চ আছে সেটা অ্যাপল আগের থেকে ২০% কমিয়ে দিয়েছে। এর ফলে ফোনের ভিতর আরো সঙ্কুচিত হয়ে গেছে।

এতে এটি আরো সিকিউর হয়ে গেছে কিন্তু সাইজ আরো ছোট করে দেয়া হয়েছে। এখানে যে সাউন্ড শুনার জন্য যেটি থাকে একেবারে উপরে দিয়ে দেয়া হয়েছে। এতে আপনি যে কোনো সাউন্ড আগের তুলনায় আরো পরিষ্কার এবং ভালো শুনবেন। এর সাথে এই ফোনের স্ক্রিনে লাগানো হয়েছে বারো মেগা পিক্সেলের অসাধারণ ডেপথ ক্যামেরা সিস্টেম। আপনি যদি এক হাতে ফোন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে এই ফোনটির স্ক্রীন এবং ফোনটি আপনি চালিয়ে অনেক আরাম অনুভব করবেন। কিন্তু এই একই আরাম আপনি ১৩ প্রো ম্যাক্সে পাবেন না। এই আইফোন রয়েছে অ্যাপলের শক্তিশালী। A15 বায়োটিক চিপ। এখন এটি লেটেস্ট আইওএস 15 এ চলছে।

এর সাথে সাথে আপনি পাচ্ছেন সিক্স কোর সিপিইউ এবং ফোর কোর জিপিউ। এর দুটি কোরের ফলে আপনি এই ফোন থেকে এত ভালো পারফরমেন্স পাবেন যা আপনি ভাবতেই পাচ্ছেন না। আপনি এই কারণে যে কোনো ধরনের বড় গেম বা অ্যাপ্লিকেশন এই ফলে চালাতে পারবেন।

আপনি যদি এই ফোনের ব্যাটারির ক্ষেত্রে জিজ্ঞেস করেন তাহলে আপনি আইফোন ১২ এর থেকে আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্সের ব্যাটারি আপনাকে আরো এক ঘন্টা ত্রিশ মিনিট চালানোর সুযোগ দিচ্ছে। তাহলে আপনি ভাবতে পারছেন এটি আপনাকে ভালো পারফরম্যান্স দেয়ার পাশাপাশি বেশিক্ষণ চালানোরও সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে। এই ফোনে রেপিড শিল্ডও আছে জার ফলে আপনি যদি মোটামুটি উচু থেকেও যদি ফোন ফেলেন তাহলে কিছু হবে না।

এছাড়া আপনি যদি এই ফোনটিকে পানিতে ভিজিয়ে রাখেন তাহলে কিছু হবে না কারণ এটি ওয়াটার প্রুফ মোবাইল।এই ফোন দিয়ে আপনি যখন ছবি তুলতে যাবেন এখানে আলাদা অনেক অপশন আছে। এর মাধ্যমে ছবি তুললে পুরো অসাধারণ এবং চমৎকার লাগে। আবার আপনি যখন আপনার তুলা ছবি কাস্টোমাইজ করবেন তখন দেখবেন সেখানে  অনেক অপশন রয়েছে যা অন্যান্য ফোনে নেই। এখানে অনেক ফটোগ্রাফিক স্টাইলও আছে। এখন যদি আমরা ভিডিওতে গেলে তাহলে আপনি এখানে সিনেম্যাটিক ভিডিও নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন।

এই সিনেমাটিক ভিডিও সাহায্যে আপনি যদি কোন ভিডিও রেকর্ড করেন তাহলে আপনি প্রফেশনাল সিনেমার ক্যামেরার মতো সুন্দর করে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। এর সাথে সাথে আপনি ফোকাসকে পরে যুক্ত করতে বা শিফট বা বিভিন্ন পরিবর্তন ভিডিওতে করতে পারবেন। এর মাধ্যমে আপনি কিছুটা মুভির মত করে আপনার ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। তো ক্যামেরার পারফরম্যান্সের দিক দিয়েও এই ফোনটি সেরা লেগেছে আমার কাছে।

এসব কারণে আইফোন এত ভালো। কিন্তু আইফোন ১৩ প্রো ম্যাক্স সবার কেনার সামর্থ নেই। এর দামও অনেক। যাই হোক এই ফোনের দাম যেমন অনেক এই ফোনের কোয়ালিটিও তেমন ভালো। যেমন: এই ফোনের ক্যামেরা অনেক ভালো, এর পারফরম্যান্স অনেক ভালো, এটি হাত থেকে পরে গেলেও সমস্যা হবে না, এটি পানিতে ভিজিয়ে রাখলেও কোনো সমস্যা হবে না। এই সব ফিচার অন্য কোনো মোবাইলে নেই। তাই বলা যায় এই ফোনটি অনেক ভালো তেমন দামি। তো আশা করি আপনাদের এই আর্টিকেলটা ভালো লেগেছে পড়ে। যদি কোনো বুঝতে অসুবিধা হয় তাহলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *